Header Ads Widget

বরগুনায় আওয়ামীলীগ রাজনীতির জীবন্ত কিং বদন্তি- আলহাজ্ব মোঃ জাহাঙ্গীর কবির



শাজনুস শরীফ স্টাফ রিপোর্টারঃ

গোপালগঞ্জের মতো দক্ষিন জনপদের জেলা বরগুনা, ধীরে ধীরে আওয়ামীলীগের শক্ত ঘাটিঁতে পরিনত হয়েছে।

এক সময়ের বিএনপি অধ্যুষিত বরগুনাকে আওয়ামীলীগের একচ্ছত্র ঘাটিঁতে রুপান্তরিত করতে মুল ভুমিকা পালন করেছেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতিচ্ছবি আওয়ামী রাজনীতির কিং বদন্তি  দু:সময়ের ত্যাগী ও পরিক্ষিত নেতা  আলহাজ্ব মোঃ জাহাঙ্গীর কবির।

তার দক্ষতা, যোগ্যতা, মেধা, মনন,প্রজ্ঞা ও রাজনৈতিক দূরদর্শিতা দিয়ে বরগুনার আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী ও সুদৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়ে এক অপ্রতিদ্বন্ধী রাজনৈতিক দলে রুপান্তর করেছেন।

তার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের সাংগঠনিক তৎপরতায় এ অঞ্চলে বিএনপি জামায়াত এর নেতৃত্বাধীন দলীয় জোট নিস্প্রভ হয়ে পরেছে।

রাতদিন একাকার করে তিনি আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিত ও দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে শহর থেকে গ্রাম আর গ্রাম থেকে গ্রামান্তর ছুটে বেড়িয়েছেন।

তার দূরদর্শিতায় বরগুনার সব জনপ্রতিনিধি  এখন আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের সুখ-দুখের ভাগিদার। আলহাজ্ব মোঃ জাহাঙ্গীর কবির কালক্রমে নেতা-কর্মীদের আস্থা ও ভরসার প্রতিক এবং শেষ ঠিকানায় পরিণত হয়েছেন।

১৯৭১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে সেই সময়ের সাহসী টগবগে যুবক  আলহাজ্ব মোঃ জাহাঙ্গীর কবির স্বাধীনতার পর তরুন বয়সে রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে প্রায় দুই যুগের বেশী সময় ধরে বরগুনা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক পদের দায়িত্ব পালন করে দলীয়  শীর্ষ স্থান ধরে রাখতে পেরেছেন অত্যন্ত সুনামের সহিত ।

বরগুনার বিভিন্ন সময়ে অনেক রাজনৈতিক বিবাদের উত্থান হয়েছে। কিন্তু সার্বিক সমীকরনে আলহাজ্ব মোঃ জাহাঙ্গীর কবিরের দু:দর্শিতার কারনে সকল রাজনৈতিক বিভেদের অবসান হয়েছে এবং তিনি তার সততা ধরে রাখতে পেরেছেন।

বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যার প্রথম প্রতিবাদ মিছিল করায় কারাবন্ধীও ছিলেন তিনি।

তাছাড়া বিভিন্ন সংকটময় মুহুর্তে কয়েক বার জেল জুলুম খেটেছেন , তিনি হাটি হাটি পায়ে ছাএ রাজনীতি হতে বিকশিত হয়ে আজ আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় শীর্ষ রাজনৈতিক নেতায় পরিনত হয়েছেন এবং জনপ্রিয়তায় শীর্ষে উঠে এসেছেন । বরগুনা নামক জনপদের সার্বিক উন্নয়নে তার অপরিসীম ভুমিকা রয়েছে। ফলে তিনি বরগুনার সাধারন মানুষের অভিভাবকের আসনে অধিষ্টিত হয়েছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ